আজ কালো রাত! তার মানে ব্যর্থ নয়! আলোকিত দিনটি হয়তো কালকেই।

Quota

গল্পে’র বালকের পাখি শিকার থামিয়ে দিতে যেমন সামান্য পিঁপড়াই যথেষ্ট, তেমনি আপনার জীবনের লক্ষ্যটাও থামিয়ে দিতে পারে অতি ক্ষুদ্র কিছু জিনিস। স্বপ্ন পূরনের আশাই হলো বেঁচে থাকতে চাওয়ার অন্যতম কারণ। অনেকসময় যেমন খুব ছোট সাইজের ফাইলের জন্য নষ্ট হয়ে যায় সকল ডেটা, তাই ডেটা নষ্ট হওয়ার আগে এসব ছোট-খাটো মারাক্তক ফাইল (ভাইরাস) থেকে পরিত্রান পেতে এন্টিভাইরাস ব্যবহার করা হয়ে থাকে, ঠিক তেমনি জীবনের লক্ষ্যটা হলো জীবনের প্রধান ডেটা স্বরূপ। এটাকে ছোট-খাটো ভাইরাস অর্থাৎ, বিভিন্ন ব্যার্থতা, কষ্ট, ভয়, হতাশা, জড়তা ইত্যাদি বিষয়াবলি থেকে সুরক্ষার জন্য নিজের মাথার ভিতর তৈরি করতে হবে এক শক্তিশালী এন্টিভাইরাস, যা কাজ করবে ইথিক্যাল ভাইরাস হিসেবে। অর্থাৎ, আপনাকে আপনার মাথার ভিতর এমন এক ভাইরাস তৈরি করতে হবে যা, উক্ত বিষয়াবলি থেকে সুরক্ষা দিবে ও লক্ষে পৌছাতে ইথিক্যাল ভাইরাস হিসেবে কাজ করবে মস্তিষ্কে। মনে রাখবেন, লক্ষে সবাই পৌছাই না, ফলাফল মাত্র দুইটা সফলতা আর ব্যার্থতা। কর্মের ও কঠোর পরিশ্রমেরে শেষে যেকোনো একটি পেতে পারেন। আর যদি কোনো কর্মই না করা হয় তাহলে কিছুই আশা করা যাইনা, এর মানে শূন্য, ছেড়া খেতাই সপ্ন দেখার মতো হয়ে যাবে। শূন্য থেকে কিছুই আসেনা, কিছু আসে ব্যার্থতা আর সফলতার মাঝ থেকেই। যাইহোক, এতকিছু লেখার মনমানসিকতা ছিলোনা, লিখতে লিখতে লেখা হয়ে গেলো। পড়ার জন্য ধন্যবাদ।

-মোহিত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *